কানাডা উত্তর আমেরিকার উত্তরাংশে অবস্থিত একটি দেশ। এটার দশটি প্রদেশ ও তিনটি অঞ্চল ও আটলান্টিক মহাসাগর থেকে প্রশান্ত (ইংরেজি: Pacific প্যাসিফিক) মহাসাগর এবং উত্তরে আর্কটিক মহাসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত, যা এটিকে মোট আয়তনের দিক দিয়ে পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তর দেশে পরিণত করেছে। আজ আমরা আলোচনা করব কানাডায় উচ্চশিক্ষা, স্কলারশিপ এবং ফান্ড ম্যনেজ  নিয়ে।

ফান্ড ম্যানেজ করার উপায় প্রথমত দুইটা। 

প্রথম উপায় হলো, আপনি যদি আগের থেকে জানেন যে স্পেসেফিক কোন প্রফেসরের হাতে এখন ফান্ডিং আছে কিনা কিংবা উনি এখন স্টুডেন্ট নিতে চাচ্ছেন উনার রিসার্চ কিংবা টিচার্স এ্যাসিসটান্ট হিসেবে, তবে সরাসরি উনাকে আপনার ফুল প্রোফাইল মেইল করুন। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে “আমি কিভাবে জানবো যে, কোন প্রফেসরের হাতে এখন ফান্ডিং আছে?” আসলে জিনিসটা জানা একটু জটিল। এটা জানার একমাত্র উপায় হলো যদি আপনার কোন পরিচিত, ভার্সিটির বড় ভাই কিংবা পরিচিত কোন স্যার কানাডার কোন প্রফেসরের আন্ডারে থাকেন, তবে উনারাই আপনাকে এই খোজ দিতে পারেন। 

দ্বিতীয় উপায় হচ্ছে, আপনার পছন্দমত ভার্সিটি চুজ করুন প্রথমে। এরপর ফ্যাকাল্টির ওয়েবসাইটে গিয়ে প্রফেসরদের প্রোফাইল দেখুন। ওখানে আপনি কাউকে না কাউকে আশা করি পাবেন, যার কাজের ফিল্ড/ রিসার্চ ইন্টারেস্টের সাথে আপনি আগেও কাজ করেছেন। সেই সব প্রফেসরদের পেপারগুলো ইন্টারনেট থেকে নামিয়ে ফেলুন। সেগুলো ভালো করে স্ট্যাডি করুন। এরপর সুন্দর করে একটা রিসার্চ প্রপোজাল লিখুন। এরপর মেইল করে পাঠিয়ে দিন।

তবে ফান্ড পাওয়ার জন্য যেটা আসলেই দরকার সেটা হচ্ছে, ভাল CGPA, ভাল IELTS স্কোর, আপনি পূর্বে কয়টা পেপার পাবলিশ করেছেন, আপনি কত ভালো রিচার্স প্রপোজাল লিখতে পারছেন ইত্যাদির উপর। 

পাসপোর্টের আবেদন:

পাসপোর্ট নিয়ে অনেকেই ভোগান্তিতে পড়েন কিংবা অনেকে আবার দালালকে দিয়েও পাসপোর্ট করান। বর্তমানে পাসপোর্ট করা সহজতম কাজের মধ্যে একটা। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে পাসপোর্টের আবেদন করবেন।

ভিসার আবেদন: 

প্রথমেই বলে নিই, ভিসার আবেদনের জন্য নিচের লিংকে দেওয়া ডকুমেন্ট গুলোই প্রয়োজন। বাকি কিচ্ছু দরকার নেই। 

http://www.cic.gc.ca/english/information/applications/student.asp?countrySelect=BD#applicatio

ডকুমেন্ট চেকলিস্টে যে যে ডকুমেন্ট গুলো আছে সেগুলো ঠিক মত করার জন্য আপনাকে গ্রুপের কাভার ফটোতে দেওয়া মেইল এড্রেসের আপনার অফার লেটার সহ মেইল করেন। কোন ডকুমেন্ট কিভাবে প্রস্তুত করবেন, কি লিখবেন না লিখবেন, কি কি ডকুমেন্ট লাগবে না লাগবে, ভিসা আবেদনের খুটিনাটি সব কিছু এই মেইলের রিপ্লাইয়ে পেয়ে যাবেন।